আফ্রিকানদের ‘বানর’ বলেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রেগান!

আফ্রিকানদের ‘বানর’ বলেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রেগান!
সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রেগান (Image : Gary Cameron/Reuters)

টেলিফোনে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রেগান আফ্রিকার লোকদের বানর বলে সন্মোধন করছেন, এমন একটি অডিও ক্লিপ প্রকাশ করল আরেক সাবেক প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্সনের রাষ্ট্রীয় সংগ্রহশালা নিক্সন লাইব্রেরি।

১৯৭১ সালের অক্টোবরে ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর থাকাকালীন রোনাল্ড রেগান টেলিফোনটি করেছিলেন তখনকার প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্সনকে। এর আগের দিন জাতিসংঘে এক প্রস্তাবে তাইওয়ানের বিপক্ষে এবং চীনের পক্ষে ভোট দেয় আফ্রিকার কয়েকটি দেশ। ভোটাভুটিতে চীন জয়ী হলে উল্লাস প্রকাশ করে আফ্রিকার দেশগুলো। তানজানিয়ার প্রতিনিধি দলের সদস্যরা নাচতে শুরু করেন অধিবেশন কক্ষের ভেতরেই। এটিরই উল্লেখ করে টেলিফোন আলাপে আফ্রিকা দেশগুলোর প্রতিনিধিদের বানরের সাথে তুলনা করেন ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্যের তৎকালীন গভর্নর রোনাল্ড রেগান।

টেলিফোন কথোপকথনে রোনাল্ড রেগান প্রেসিডেন্ট নিক্সনকে উদ্দেশ্য করে বলেন, “আমি আপনাকে বলেছিলাম, গতকাল রাতের অনুষ্ঠানটি দেখতে।”

প্রেসিডেন্ট নিক্সন উত্তর দেন, “হ্যাঁ।”

রেগান তখন বলেন, “আমি দেখছিলাম, আফ্রিকার দেশগুলো থেকে আসা ঐ বানরগুলোকে। ওরা এখনও জুতা পড়তেও অস্বস্তিবোধ করে!”

শুনে হো হো করে হেসে ওঠেন অন্যপ্রান্তে থাকা রিচার্ড নিক্সন।

উল্লেখ্য, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বরাবরই তাইওয়ানের সমর্থক। তাইওয়ানকে স্বাধীন ভূখন্ডের মর্যাদা দিয়ে এসেছে দেশটি। রোনাল্ড রেগানও তাইওয়ানের প্রতি তার সমর্থন বরাবর জানিয়ে এসেছেন। অন্যদিকে চীন তাইওয়ানকে নিজেদের অবিচ্ছেদ্য প্রদেশ হিসেবে দাবি করে থাকে।

রেগান পরবর্তীতে প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ১৯৮১ থেকে ১৯৮৯ সাল পর্যন্ত।

প্রেসিডেন্ট নিক্সনের সাথে রোনাল্ড রেগানের এই কথোপকথনের ক্লিপটি ২০০০ সালে অবমুক্ত করা হলেও সেখানে রেগানের করা এই বর্ণবাদী মন্তব্যের অংশটুকু কেটে বাদ রাখা হয়েছিল।

গতবছর একজন গবেষক কোন রকম কাটাছেঁড়া ছাড়াই পুরো অডিও ক্লিপটি প্রকাশ করার অনুরোধ জানান। সেইমত যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল আর্কাইভ পুরো ক্লিপটি সম্প্রতি অনলাইনে প্রকাশ করে।

আশির দশকে দায়িত্ব পালনকালে প্রেসিডেন্ট হিসেবে তুমুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিলেন রোনাল্ড রেগান। কারও কারও মতে, গত শতকে দায়িত্ব পালন করা প্রেসিডেন্টদের মধ্যে জনপ্রিয়তায় রেগানই ছিলেন সবার ওপরে, এমনকি জন এফ কেনেডির চেয়েও।

তবে সামনে আসা নতুন এই অডিও ক্লিপটি তার পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তিতে কিছুটা হলেও ধাক্কা দেবে বলে মনে করা হচ্ছে।

বর্ণবাদী মন্তব্য করা প্রেসিডেন্ট রেগানের এই অডিও ক্লিপটি এমন এক সময়ে প্রকাশিত হল, যখন বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ডেমোক্রেট দলের চারজন সদস্যের উদ্দেশ্যে বর্ণবাদী মন্তব্য করে তাদেরকে যুক্তরাষ্ট্র ছেড়ে তাদের পূর্বপুরুষদের দেশে ফিরে যেতে বলেছেন।

ট্রাম্পের এই মন্তব্যে নিন্দার ঝড় উঠেছে শুধু ডেমোক্রেটদের পক্ষ থেকেই নয়, রিপাবলিকান শিবির থেকেও। এমনকি দেশটির সংসদও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বর্ণবাদী ভাষা প্রয়োগের কঠোর নিন্দা জানিয়ে একটি প্রস্তাব পাশ করেছে।