টাইম ম্যাগাজিনের এবারের ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ গ্রেটা থানবার্গ

টাইমের প্রচ্ছদের এবারে 'পারসন অব দ্য ইয়ার' গ্রেটা থানবার্গ (Image: Reuters)

২০১৯ সালের টাইম ম্যাগাজিনের ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ নির্বাচিত হয়েছেন পরিবেশ আন্দোলনে সারা বিশ্বের প্রতীক হয়ে ওঠা সুইডিশ কিশোরী গ্রেটা থানবার্গ। মাত্র ১৬ বছর বয়সে এই সন্মান পাওয়ার সুবাদে গ্রেটাই এখন টাইম ম্যাগাজিনের ইতিহাসের সর্বকনিষ্ঠ ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’।

সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে জন্ম নেওয়া গ্রেটা থানবার্গ গত বছর সারাবিশ্বের নজরে আসে্ন পরিবেশ রক্ষায় তার অভিনব আন্দোলনের মাধ্যমে। প্রত্যেক শুক্রবার স্কুলে না গিয়ে প্ল্যাকার্ড হাতে সুইডিশ পার্লামেন্টের সামনে বসে পড়তেন এই কিশোরী। দাবি জানা্তেন পরিবেশে রক্ষায় ক্ষমতাধরদের কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ার।

এই নিয়ে গণমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশ হতেই সারাবিশ্বে রাতারাতি ছড়িয়ে পড়ে গ্রেটার নাম।তার অভিনব আন্দোলনে অনুপ্রাণিত হয়ে বিশ্বের লক্ষ লক্ষ শিক্ষার্থী প্রতি শুক্রবার স্কুলে না গিয়ে পরিবেশ বাঁচানোর দাবিতে বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করতে শুরু করে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে #FridaysForFuture হ্যাশট্যাগের মাধ্যমে এই আন্দোলনে একাত্ম হয় সর্বস্তরের মানুষ।

পরিবেশ সুরক্ষার দাবিতে সারাবিশ্বে এমন অভূতপূর্ব আলোড়ন সৃষ্টির স্বীকৃতিস্বরূপ এরই মধ্যে বহু আন্তর্জাতিক পুরষ্কার ও সন্মানে ভূষিত হয়েছেন গ্রেটা থানবার্গ। এবছরের নোবেল শান্তি পুরষ্কারের জন্যও সবচেয়ে বেশি আলোচিত হয়েছিল তার নাম।

আর বছরের শেষে এসে টাইম ম্যাগাজিনের ২০১৯ সালের ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ নির্বাচিত হলেন গ্রেটা। অনন্য এই অর্জনের প্রতিক্রিয়ায় টুইটারে গ্রেটা জানায়, “দারুণ, এটা অবিশ্বাস্য! আমি এই সন্মান #FridaysForFuture আন্দোলনে সম্পৃক্ত এবং সর্বত্র পরিবেশ রক্ষায় সক্রিয় কর্মীদের সাথে ভাগ করে নিলাম”।

পরিবেশের মত স্পর্শকাতর ইস্যুতে প্রচারণার কারণে বিশ্বব্যাপী বিপুল সংখ্যক অনুরাগীর সাথে সাথে কিছু বিরোধীও তৈরি হয়েছে গ্রেটার। আর সমালোচকদের সেই ছোট তালিকায় রয়েছে বড় কয়েকটি নামও।

ব্রাজিলের দক্ষিণপন্থী প্রেসিডেন্ট জায়ার বোলসোনারো তাদেরই একজন।দেশটির আমাজন জঙ্গলে বন আগলে রাখা আদিবাসী কয়েকজন নাগরিককে হত্যার প্রতিবাদ করায় গ্রেটা থানবার্গকে ‘বিপথে যাওয়া কিশোরী’ বলে কটাক্ষ করেছিলেন তিনি।

এর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের পরিবেশবিরোধী অবস্থানের সমালোচনা করে তারও রোষানলে পড়েছিলেন গ্রেটা। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন গ্রেটাকে ‘উদার, কিন্তু পরিবেশ সম্পর্কে ভূলভাবে অবহিত’ বলে মন্তব্য করেছিলেন।

তবে এসব কটুক্তিকে পেছনে ফেলে নিজের আন্দোলন চালিয়ে গেছে্ন গ্রেটা থানবার্গ। তার স্বীকৃতিস্বরূপ এবার টাইম ম্যাগাজিনের চোখে ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ নির্বাচিত হলেন তিনি।

বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ ম্যাগাজিন ‘টাইম’ ১৯২৯ সাল থেকে বছরের সবচেয়ে আলোচিত ব্যক্তিত্বকে ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ উপাধিতে ভূষিত করে আসছে। তবে শুধু ইতিবাচকই নয়, নেতিবাচক ভূমিকাতেও কেউ বছরজুড়ে আলোচনার শীর্ষে থাকলে তাকেও এই উপাধি দেওয়া হয়ে থাকে।

গত বছর ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ নির্বাচিত হয়েছিলেন পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে নিহত ও কারারুদ্ধ সংবাদকর্মীরা, টাইম ম্যাগাজিন যাদের নাম দিয়েছিল ‘দ্য গার্ডিয়ানস’।