ব্যাপক উৎসাহে বছরের শেষ সূর্যগ্রহণ উপভোগ করল বিশ্ব

পাকিস্তানের পেশোয়ারে এক প্রবীণ ব্যস্ত বছরের শেষ সূর্যগ্রহণ দেখায় (Image: Reuters)

ইন্দোনেশিয়া, শ্রীলংকা, সৌদি আরবসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মানুষ ব্যাপক উদ্দীপনায় প্রত্যক্ষ করল এবছরের শেষ সূর্যগ্রহণ।

পৃথিবীর চারিদিকে ঘুরতে ঘুরতে চাঁদ যখন সূর্য আর পৃথিবীর মাঝধানে চলে আসে, তখন সেটাকেই বলা হয় সূর্যগ্রহণ।

সূর্যগ্রহণ হয়ে থাকে দু’ধরনের। একটি পূর্ণ, অন্যটি আংশিক। যদি গ্রহণের সময় সূর্যের সামনে দিয়ে চাঁদের পুরো অংশ অতিক্রম করে তাহলে সেটি পূর্ণ সূর্যগ্রহণ। অতিক্রমের সময় আলোকিত সূর্যের ঠিক মাঝখানে যখন চাঁদের গোল কালো ছায়াটি এসে পড়ে তখন একে অনেকটা আংটির মত মনে হয়। তাই পূর্ণ সূর্যগ্রহণকে ‘রিং অব ফায়ার’ বা ‘আগুনের আংটি’ নামেও ডাকা হয়।

অন্যদিকে গ্রহণের সময় যদি সূর্যের একপাশ ঢেকে চাঁদটি অতিক্রম করে তাহলে তাকে বলা হয় আংশিক সূর্যগ্রহণ।

বৃহস্পতিবারের সূর্যগ্রহণটি ছিল পূর্ণ। এধরনের সূর্যগ্রহণ বছরে দু’বার হয়ে থাকে। আর আংশিক হোক বা পূর্ণ, একেকটি সূর্যগ্রহণ পৃথিবীর একেক অঞ্চল থেকে দৃশ্যমান হয়। যেমন বৃহস্পতিবারের গ্রহণটি দেখা গিয়েছিল পূর্ব ইউরোপ, প্রায় পুরো এশিয়া, উত্তর আফ্রিকা ও উত্তর-পশ্চিম অস্ট্রেলিয়া থেকে।

এর আগে শেষ পূর্ণ সূর্যগ্রহণটি হয়েছিলে এবছরেরই ২ জুলাই। সেটি দেখা গিয়েছিল দক্ষিণ আমেরিকা থেকে। আর এর পরের সূর্যগ্রহণটি হবে ২০২০ সালের ২১ জুন। সেটি দেখা যাবে দক্ষিণ-পূর্ব ইউরোপ, প্রায় পুরো এশিয়া ও উত্তর অস্ট্রেলিয়া থেকে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সূর্যগ্রহণ উপভোগের কিছু মূহুর্ত:

ইন্দোনেশিয়ার সুলাওয়েসিতে উৎসুক নারীরা উপভোগ করছেন সূর্যগ্রহণ (Image: Reuters)
সৌদি আরবের জাবাল আরবা পর্বতমালা থেকে দেখা সূর্যগ্রহণ (Image: Reuters)
থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে টেলিস্কোপের নীচে সাদা কাগজ রেখে একটু ভিন্নভাবে দেখা হল সূর্যগ্রহণ (Image: Reuters)
ভারতের ত্রিপুরায় এক্সরের ছবি ধরে সূর্যগ্রহণ দেখে নিচ্ছেন কৌতুহলী পুরোহিতও (Image: Reuters)