মাত্র ১২ ঘন্টায় ৩৫ কোটি গাছ লাগালো ইথিওপিয়া

মাত্র ১২ ঘন্টায় ৩৫ কোটি গাছ লাগালো ইথিওপিয়া
নিজ হাতে গাছ লাগিয়ে নিজের ডাকা কর্মসূচীতে অংশ নিলেন ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রী আবি আহমেদ (Image : Twitter/Office of the Prime Minister of Ethiopia)

অবিশ্বাস্য এক রেকর্ড গড়ল ইথিওপিয়া। সোমবার মাত্র ১২ ঘন্টায় পুরো দেশজুড়ে ৩৫ কোটি গাছ লাগিয়েছে আফ্রিকার এই রাষ্ট্রটি।

অভিনব এই উদ্যোগটি নেওয়া হয় দেশটির প্রধানমন্ত্রী আবি আহমেদের ‘গ্রীন লেগাসি’ প্রচারণার অংশ হিসেবে। ইথিওপিয়া জুড়ে ব্যাপক পুনঃবনায়নের উদ্দেশ্যে এই প্রচারণার ডাক দিয়েছিলেন তিনি।

সোমবারের কর্মসূচিত সকাল থেকেই অংশ নেয় ইথিওপিয়ার কয়েক মিলিয়ন মানুষ। তাদের মধ্যে ছাত্র-ছাত্রী, চাকুরিজীবি, ব্যবসায়ী থেকে শুরু করে সরকারি আমলা, মন্ত্রী-সাংসদ-রাজনীতিবিদ, বিভিন্ন বাহিনীর সদস্যসহ ছিল সকল শ্রেণীর মানুষের অংশগ্রহণ।

কর্মসূচী শুরুর ছয় ঘন্টার মাথায় প্রধানমন্ত্রী আবি টুইট করে জানান, প্রায় ১৫ কোটি গাছ এরই মধ্যে লাগানো হয়ে গেছে। তিনি লেখেন “আমরা আমাদের লক্ষ্যের অর্ধেক পথ পাড়ি দিয়েছি।” তিনি সবাইকে আহবান জানান বাকি সময়টুকুতে বাকি লক্ষ্য পুরণে সর্বশক্তি নিয়োগের।

আর বারো ঘন্টা পার হওয়ার পর আরেকটি টুইটে প্রধানমন্ত্রী জানান, “ইথিওপিয়া শুধু তার ‘গ্রীন লেগাসি’-র লক্ষ্যমাত্রা পূর্ণই করেনি, তা ছাড়িয়েও গেছে।”

দেশটির প্রযুক্তিমন্ত্রী অপর এক টুইটে জানান, মোট ৩৫,৩৬,৩৩,৬৬০ টি গাছ এদিন লাগানো হয়েছে দেশজুড়ে।

একদিনে ৩৫ কোটি গাছ লাগালেও ইথিওপিয়ার সার্বিক লক্ষ্যমাত্রা আরও বড়। তারা মে থেকে অক্টোবর পর্যন্ত পুরো বর্ষাকাল জুড়ে ছোট-বড় মিলিয়ে মোট ৪০০ কোটি গাছ লাগানর পরিকল্পনা নিয়েছে বলে সম্প্রতি জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী আবি আহমেদ।

আফ্রিকার একটি বেসরকারি সংস্থার মতে, ১৯-র দশকের শুরুতে ইথিওপিয়ার মোট বনভূমি যেখানে ছিল ৩০ শতাংশ, সেখানে এখন তা কমে দাঁড়িয়েছে ৪ শতাংশে।

বেশ কয়েক বছর ধরেই জলবায়ু পরিবর্তনের নেতিবাচক প্রভাবে ভুগছে স্থলবেষ্টিত ইথিওপিয়া। দেশটির ৮০ শতাংশ মানুষই কৃষিকাজের ওপর নির্ভরশীল হওয়ায় এতে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে দেশের অর্থনীতিও। কাছাকাছি চিত্র আফ্রিকার অন্যান্য দেশগুলোরও।

এই অবস্থায় কয়েক বছর আগে ইথিওপিয়াসহ আফ্রিকার প্রায় দু’ডজন দেশ সিদ্ধান্ত নেয় মহাদেশের ১০ কোটি হেক্টর জমি বনায়ন করার। সেই লক্ষ্য বাস্তবায়নে বড় পদক্ষেপ নিয়ে দেখাল ইথিওপিয়া।

এক গবেষণায় দেখা গেছে, পৃথিবীর হারিয়ে যাওয়া বনাঞ্চলগুলোকে আবারও সবুজ করা গেলে কার্বন নিঃসরণের জেরে বেড়ে যাওয়া তাপমাত্রা প্রায় দুই-তৃতীয়াংশ কমিয়ে ফেলা সম্ভব। কারণ এই পরিমান গাছ প্রায় ২০৫ বিলিয়ন টন কার্বন শুষে নিতে সক্ষম। প্রতি বছর প্রকৃতিতে প্রায় ১০ বিলিয়ন টন কার্বন যুক্ত হয়।