মার্কিন নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপ নিয়ে পুতিনের সামনেই ট্রাম্পের কৌতুক

জাপানের ওসাকায় জি-২০ শীর্ষ সম্মেলনের ফাঁকে ভ্লাদিমির পুতিনের সাথে ডোনাল্ড ট্রাম্পের বৈঠক (Image: Reuters)

২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ নিয়ে গত কয়েক বছর ধরেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চলছে তুমুল তর্ক-বিতর্ক। সে নির্বাচনে পরাজিত হিলারি ক্লিনটনের দল ডেমোক্রেটিক পার্টির দাবি, নির্বাচনী ব্যবস্থায় নানাভাবে ঢুকে পড়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে জিতিয়েছে রাশিয়াই। অন্যদিকে ভিত্তিহীন বলে এসব দাবি উড়িয়ে দিয়েছে ট্রাম্পের দল রিপাবলিকান পার্টি। যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, সেই রাশিয়াও বরাবরই অস্বীকার করে এসেছে ঐ নির্বাচনে তাদের কোন সংশ্লিষ্টতার কথা।

এর আগে এই অভিযোগের ব্যাপারে যতবারই ডোনাল্ড ট্রাম্পকে প্রশ্ন করা হয়েছে, হয় তিনি রেগে গিয়েছেন, নাহয় বিরক্ত হয়েছেন, নাহয় প্রশ্নই এড়িয়ে গিয়েছেন। কিন্তু এবার এই ইস্যুতে একটু ব্যতিক্রমী প্রতিক্রিয়াই দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তাও আবার অভিযোগের মূল অভিযুক্ত রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সামনেই।

ঠিক কি হয়েছিল?

জাপানের ওসাকায় চলছে বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর জোট জি-২০ এর শীর্ষ নেতাদের সন্মেলন। ট্রাম্প, পুতিন, শি, থেরেসা, ম্যাক্রো, মেরকেল, সালমান, এরদোগানসহ বিশ্বের প্রভাবশালী তাবড় তাবড় রাষ্ট্রনেতারা ভিড় করেছেন জাপানের উপকূলীয় এই শহরে। জোটগত বৈঠকের পাশাপাশি উপস্থিত নেতারা একে অন্যের সাথে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকও সেরে নিচ্ছেন। তেমনই একপ্রস্থ আলোচনা সারতে একসাথে বসেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

বৈঠক শেষে উপস্থিত সাংবাদিকরা তাদের আলোচনা নিয়ে ট্রাম্প-পুতিনকে নানান প্রশ্ন করেন। তখনই এক সাংবাদিক ট্রাম্পকে উদ্দেশ্য করে বলেন, “মি. প্রেসিডেন্ট, আপনি কি রাশিয়ার প্রেসিডেন্টকে বলবেন আগামী নির্বাচনে হস্তক্ষেপ না করতে?” একটুও অপ্রস্তুত না হয়ে খানিকটা মুচকি হেসে ট্রাম্প সাথে সাথে উত্তর দেন, “হ্যাঁ, অবশ্যই আমি বলব।” তারপরই সামান্য মুখ ঘুরিয়ে পুতিনের উদ্দেশ্যে বলেন, “দয়া করে নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করবেননা।” এরপর পুতিনের পাশে বসা রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাবরভের দিকে তাকিয়ে আঙুল উঠিয়ে তাকেও বলে, “নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করবেননা।” ট্রাম্পের এই তাৎক্ষণিক রসিকতা ততক্ষণে হাসি এনে দিয়েছে প্রেসিডেন্ট পুতিনের মুখেও। তবে কোন মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকেন তিনি।

২০১৬ সালের নির্বাচনে কথিত রুশ হস্তক্ষেপ নিয়ে অভিযোগের তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল মার্কিন কৌশলি রবার্ট মুলারকে। সেই তদন্ত সম্পন্ন হওয়ার পর এবারই প্রথম সামনাসামনি দেখা হল প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও প্রেসিডেন্ট পুতিনের।

রবার্ট মুলারের জমা দেওয়া তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, রাশিয়া ২০১৬ সালের নির্বাচনে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় সাইবার হামলা এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিথ্যা খবর ছড়িয়ে প্রভাব বিস্তার করার চেষ্টা চালিয়েছিল।

তবে প্রতিবেদনটিতে এও উল্লেখ করা হয়, তারা এমন কোন প্রমাণ পাননি যে রাশিয়ার এসব তৎপরতার সাথে ট্রাম্প শিবিরের কোন যোগাযোগ আছে বা তারা নির্বাচনে জেতার জন্য রাশিয়াকে দিয়ে এসব করিয়েছে।

দেখে নিন পুতিনের সামনেই মার্কিন নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ নিয়ে ট্রাম্পের মজা করা :