হোমপেজ আফ্রিকা করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে ৪,০০০ বন্দীকে মুক্তির সিদ্ধান্ত ইথিওপিয়ার

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে ৪,০০০ বন্দীকে মুক্তির সিদ্ধান্ত ইথিওপিয়ার

প্রাণঘাতী নভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে দেশের ৪,০০০ কারাবন্দীকে মুক্তি দেওয়ার আদেশ দিয়েছেন ইথিওপিয়ার প্রেসিডেন্ট সালেহ-ওয়র্ক যেউদে। বুধবার এক টুইট বার্তায় প্রেসিডেন্ট এই আদেশের কথা ঘোষণা করেন। তিনি আশা প্রকাশ করেন, এই সিদ্ধান্ত কারাগারে গাদাগাদি করে বন্দীদের রাখা প্রতিরোধ করবে।

তবে ইথিওপিয়ার প্রেসিডেন্টের এই আদেশ দেশটির সকল বন্দীর জন্য প্রযোজ্য হবেনা। যারা ছোটখাট অপরাধে সর্বোচ্চ তিন বছরের কারাদন্ড প্রাপ্ত এবং যাদের শাস্তির মেয়াদ অল্প কিছুদিনের মধ্যেই শেষ হওয়ার কথা রয়েছে, কেবল তারাই এই আদেশে মুক্তি পাবেন।

বুধবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানায়, ইথিওপিয়ায় এপর্যন্ত ১২ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস সনাক্ত করা হয়েছে।

এই অবস্থায় দেশটির সরকার কোভিড-১৯ ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে জরুরি পণ্য পরিবহন ছাড়া প্রতিবেশী দেশগুলোর সাথে তাদের সীমান্ত সিল করে দিয়েছে। সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতে নিরাপত্তাবাহিনীকে বড় ধরনের জমায়েত এবং গণপরিবহনে মাত্রাতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন নিরুৎসাহিত করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ইথিওপিয়ার শান্তিতে নোবেলজয়ী প্রধানমন্ত্রী অ্যাবি আহমেদ জানিয়েছেন, ভবিষ্যৎের সম্ভাব্য ‘সবচেয়ে খারাপ’ পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে অর্থ ও প্রয়োজনীয় সম্পদ সংগ্রহ করে বিশেষ এক তহবিল গঠনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী অ্যাবি এক বিবৃতিতে বলেন, “এখন সময় হল আমাদের শক্তিকে আতঙ্ক, ভয় আর দুশ্চিন্তা থেকে সরিয়ে

একটি জাতীয় জরুরি মজুদ তহবিল গঠনে অবদান রাখার দিকে নিয়ে যাওয়ার।”

ইথিওপিয়া ছাড়াও আফ্রিকার দেশগুলোতে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে করোনা ভাইরাস। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসাব মতে, পুরো মহাদেশের ৩৯টি দেশে এখন পর্যন্ত ১,৮০০ ব্যক্তির দেহে কোভিড-১৯ ভাইরাসের উপস্থিতি সনাক্ত করা হয়েছে।