হোমপেজ আফ্রিকা করোনায় মারা গেলেন নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্টের চিফ অব স্টাফ

করোনায় মারা গেলেন নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্টের চিফ অব স্টাফ

আব্বা কায়ারি (Image: Bayo Omoboriowo)

নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুহাম্মদ বুহারির চিফ অব স্টাফ আব্বা কায়ারি নভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। প্রেসিডেন্ট বুহারির অত্যন্ত বিশ্বস্ত হিসেবে পরিচিত ছিলেন আব্বা কায়ারি। দেহে কোভিড-১৯ ভাইরাসের উপস্থিতি সনাক্তের পর একমাস চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। কায়ারির বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর।

আফ্রিকার বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ নাইজেরিয়ার সবচেয়ে ক্ষমতাধর তিন ব্যাক্তির একজন ধরা হত আব্বা কায়ারিকে। তার ওপর প্রেসিডেন্টের বিশ্বাস ও নির্ভরশীলতার কারণে অনেকেই তাকে নাইজেরিয়ার ‘ছায়া রাষ্ট্রপ্রধান’ হিসেবেও অভীহিত করতেন। শোনা যায়, এমনকি মন্ত্রীসভার সদস্য ও প্রাদেশিক গভর্নরদেরকেও প্রেসিডেন্ট বুহারির সাথে যোগাযোগ তার চিফ অব স্টাফ কায়ারির মাধ্যমে করতে হত।

এতটা ক্ষমতাবান হওয়ার পরও প্রচারের আলোয় খুব একটা দেখা যেতনা আব্বা কায়ারিকে। তার আনুষ্ঠানিক আলোকচিত্রের সংখ্যাও হাতেগোনা কয়েকটি।

আব্বা কায়ারি ৮০’র দশকে ব্রিটেনের কেমব্রিজ ও ওয়ারউইক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলেন। সেখানে তার ঘনিষ্ঠরা সকলেই তাকে অত্যন্ত মেধাবী হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

এবছরের মার্চ মাসে জার্মানিতে রাষ্ট্রীয় এক সফরের সময়েই আব্বা কায়ারি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন বলে মনে করা হচ্ছে। সেই মাসেরই ২৩ তারিখে তার করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সরকারিভাবে ঘোষণা করা হয়। কায়ারি সেসময় বলেছিলেন, তিনি ভাল আছেন এবং দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবেন বলে আশা করছেন।

চিফ অব স্টাফ আব্বা কায়ারির এই আকস্মিক মৃত্যু প্রেসিডেন্ট মুহাম্মদ বুহারির জন্য নিঃসন্দেহে একটি বড় ধাক্কা। নভেল করোনা ভাইরাসের উপদ্রবে নাইজেরিয়ার অর্থনীতি বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়তে যাচ্ছে। ‘আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল’ (আইএমএফ) এর পূর্বাভাস মতে, করোনার সার্বিক প্রভাবে দেশটির অর্থনীতি বিগত ৩০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বড় মন্দার মুখোমুখি হবে। এছাড়া রয়েছে বোকো হারামসহ বিভিন্ন জঙ্গি গোষ্ঠীকে নিয়ন্ত্রণের চ্যালেঞ্জ। এমন সময়ে আব্বা কায়ারির মত মেধাবী ও বিশ্বস্ত পরামর্শদাতা চলে যাওয়ায় প্রেসিডেন্ট বুহারি যথেষ্ঠ বিপাকে পড়বেন বলেই ধারণা করা হচ্ছে। বিশেষত যেখানে সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত দ্রুত নিতে না পারার দূর্নাম আগে থেকেই রয়েছে প্রেসিডেন্টের।

আব্বা কায়ারির আগে নাইজেরিয়ার আরও কয়েকজন উচ্চপদস্থ ব্যক্তিও নভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে দেশটির বাউচি ও ওয়ো প্রদেশের গভর্নররা কয়েক মাসের চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়েছেন। এখনও চিকিৎসাধীন রয়েছেন কাদুনা প্রদেশের গভর্নর।

নাইজেরিয়ায় সার্বিকভাবে করোনা পরিস্থিতি এখনও উদ্বেগজনক পর্যায়ে পৌঁছায়নি। দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা এখন পর্যন্ত জন ৪৯৩, মারা গেছে ১৭ জন। অবশ্য এই সংখ্যাগুলো মাত্র ৭,০০০ জনের দেহে করোনা পরীক্ষার বিপরীতে, যেখানে নাইজেরিয়ার মোট জনসংখ্যা প্রায় ২০ কোটি।