Home আফ্রিকা দক্ষিণ আফ্রিকা জুড়ে তিন সপ্তাহের লকডাউনের ঘোষণা প্রেসিডেন্টের

দক্ষিণ আফ্রিকা জুড়ে তিন সপ্তাহের লকডাউনের ঘোষণা প্রেসিডেন্টের

জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা করছেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসা (Image: Reuters)

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে তিন সপ্তাহের জন্য পুরো দেশকে লকডাউনের ঘোষণা দিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসা।

টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া এক ভাষণে প্রেসিডেন্ট রামাফোসা ২১ দিনের এই লকডাউন বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে কার্যকর হবে বলে জানান। তিনি দেশবাসীকে জরুরি ভিত্তিতে এই নির্দেশনা মেনে চলার আহবান জানান।

প্রেসিডেন্ট রামাফোসা বলেন, “আমরা যদি (করোনা) ভাইরাসের কারণে মানুষের ক্ষতি হওয়া ঠেকাতে চাই, তবে তাৎক্ষণিক, দ্রুত ও অভূতপূর্ব পদক্ষেপ আমাদের নিতেই হবে। জাতি যদি তা করতে ব্যর্থ হয়, তবে ‘ব্যাপক মাত্রায় মানবিক বিপর্যয়ের’ মুখোমুখি হতে হবে।”

তিনি আরও বলেন, “আমাদের নেওয়া পদক্ষেপগুলোর প্রভাবে অর্থনীতির ক্ষতি হবে ঠিকই, তবে পদক্ষেপগুলো না নিলে সেই ক্ষতি হবে আরও ভয়ংকর।”

দক্ষিণ আফ্রিকার স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দেওয়া তথ্যমতে, সোমবার পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪০০ ছাড়িয়ে গেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানাচ্ছে, পুরো আফ্রিকা মহাদেশে এখন দক্ষিণ আফ্রিকাতেই সবচেয়ে বেশি মানুষ কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত।

দক্ষিণ আফ্রিকা গত সপ্তাহে দেশটিতে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবকে ‘জাতীয় দূর্যোগ’ হিসেবে ঘোষণা করে। এর পরপরই কোভিড-১৯ ভাইরাসে ব্যাপকভাবে আক্রান্ত দেশ ইতালি, ইরান, দক্ষিণ কোরিয়া, স্পেন, জার্মানি, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও চীন থেকে কারও দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।

তবে গত এক সপ্তাহে অভ্যন্তরীণ সংক্রমণের জেরে দক্ষিণ আফ্রিকায় ভাইরাসটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ছয়গুণ বেড়ে যায়। এছাড়া দেশটির জনগণের একটি উল্লেখযোগ্য অংশ বিভিন্ন সময় এইডস ও যক্ষ্মার মত জটিল রোগে আক্রান্ত থাকায় তাদের শরীরে কোভিড-১৯ ভাইরাস সংক্রমিত হলে পরিস্থিতি কতটা নাজুক হবে তা নিয়ে উদ্বিগ্ন সরকার।

এই অবস্থায় সংক্রমণ ঠেকাতে গোটা দেশ দীর্ঘ সময়ের জন্য লকডাউন করা ছাড়া বিকল্প ছিলনা প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসার হাতে। তার ঘোষিত ২১ দিনের লকডাউনে খাবার ও ওষুধ কেনা, সরকার প্রদত্ত সুবিধাদি সংগ্রহ এবং চিকিৎসা সংক্রান্ত প্রয়োজন ছাড়া নাগরিকদের ঘর থেকে বের হওয়া সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ থাকবে। তবে স্বাস্থ্যকর্মী, নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যসহ জরুরি সেবাদানকারীরা এই নিষেধাজ্ঞার আওতামুক্ত থাকবেন।

লকডাউন চলাকালীন এইসব বিধিনিষেধ বাস্তবায়নে পুলিশ সদস্যদের সহযোগিতার জন্য দক্ষিণ আফ্রিকার সামরিক বাহিনীও মাঠে থাকবে বলে জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে উল্লেখ করেন প্রেসিডেন্ট রামাফোসা। তিনি জনগণকে ব্যক্তিস্বার্থের উর্ধ্বে উঠে জাতীয় স্বার্থ রক্ষায় এসব বিধিনিষেধ মেনে চলার আহবান জানান। তিনি বলেন, “আমরা ঐক্যবদ্ধ এক জাতি এবং আমরা অবশ্যই এই দুর্যোগ কাটিয়ে উঠব।”