হোমপেজ আমেরিকা করোনায় আক্রান্ত মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্টের প্রেস সেক্রেটারি

করোনায় আক্রান্ত মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্টের প্রেস সেক্রেটারি

হোয়াইট হাউজের করোনা ব্রিফিংয়ে যুক্ত থাকা কেটি মিলার নিজেই আক্রান্ত হলেন করোনায় (Image: Reuters)

এবার করোনায় আক্রান্ত হলেন মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের প্রেস সেক্রেটারি কেটি মিলার। হোয়াইট হাউজের অপর এক কর্মীর দেহে করোনা ভাইরাস সনাক্ত হওয়ার পরের দিনই আক্রান্ত হলেন পেন্সের প্রেস সেক্রেটারি।

হোয়াইট হাউজে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি সনাক্তের পরপরই এখন থেকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাম্প ও ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের শরীরে প্রতিদিন করোনা পরীক্ষা করা হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। হোয়াইট হাউজ বলছে, প্রেসিডেন্টকে রক্ষায় প্রতিটি পদক্ষেপই নেওয়া হবে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ৭৬,০০০ জনের মৃত্যু হয়েছে। অর্থনীতি চালু রাখতে কয়েক মাস ধরে চলা লকডাউন দেশটির কিছু প্রদেশ এরই মধ্যে শিথিল করতে শুরু করেছে।

ভাইস প্রেসিডেন্টের করোনায় আক্রান্ত প্রেস সেক্রেটারি কেটি মিলার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের অন্যতম উপদেষ্টা স্টিফেন মিলারের স্ত্রী। জানা গেছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বা ভাইস প্রেসিডেন্ট পেন্স কেউই গত কয়েকদিনের মধ্যে কেটি মিলারের সংস্পর্শে আসেননি। তারপরও ঝুঁকি এড়াতে প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্টকে নিয়মিত করোনা পরীক্ষার আওতায় রাখা হবে।

আজ হোয়াইট হাউজে রিপাবলিকানদের সাথে এক বৈঠকে কেটি মিলারের প্রসঙ্গ উলেখ করে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাম্প বলেন, “তিনি একজন চমৎকার নারী। এর আগে একাধিকবারের পরীক্ষায় তার শরীরে করোনা ধরা না পড়লেও আজ হঠাৎই ফলাফল পজিটিভ আসে।”

পরপর দু’দিন দু’জনের শরীরে করোনা ভাইরাস সনাক্তের প্রেক্ষিতে হোয়াইট হাউজে কি ধরনের প্রতিরক্ষামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে এমন প্রশ্নের উত্তরে ট্রাম্প বলেন, “এরকম পরিস্থিতিতে আপনি সর্বোচ্চ যা করতে পারেন তা হল ব্যক্তিগত স্তরে সতর্কতা অবলম্বন করা এবং এখানে তাই করা হচ্ছে।”

এর আগে মার্কিন নৌবাহিনীর একজন সদস্য যিনি প্রেসিডেন্ট টাম্পের খাবার পরিবেশনের দায়িত্বে ছিলেন, তার দেহে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গিয়েছিল বলে জানা যায়। সেই প্রসঙ্গে ট্রাম্প আজ বলেন, “সনাক্তের চারদিন আগে পূর্বের আরেক পরীক্ষায় নৌবাহিনীর ঐ সদস্যের শরীরে ভাইরাস ছিলনা বলে জানা গিয়েছিল। এ থেকে বোঝা যায়, সনাক্তকরণ পরীক্ষা সবসময় সমস্যাটির সমাধান নয়।”

এদিকে শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের ‘খাদ্য ও ঔষধ প্রশাসন’ (এফডিএ) ঘরে বসেই করোনা সনাক্তের পরীক্ষার উপযোগী স্যালিভা টেস্ট কালেকশন কীটের অনুমোদন দিয়েছে। অবশ্য সংস্থাটিকে এর আগে এমন সব টেস্ট কীটের অনুমোদন দেওয়ার জন্যও সমালোচিত হতে হয়েছে যেগুলো বিভিন্ন সময়ে করোনা সনাক্তের পরীক্ষায় ভূল ফল দিয়েছে।

হোয়াইট হাউজের করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত টাস্কফোর্স জানাচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রে বর্তমানে প্রতিদিন গড়ে ২৪৮,০০০ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস সনাক্তের পরীক্ষা করা হচ্ছে। দেশটিতে এ পর্যন্ত সব মিলিয়ে ৮১ লক্ষ লোককে করোনা পরীক্ষার আওতায় আনা হয়েছে।