হোমপেজ আমেরিকা রণতরী বাঁচাতে চাওয়া মার্কিন নৌবাহিনীর সেই ক্যাপ্টেন বরখাস্ত

রণতরী বাঁচাতে চাওয়া মার্কিন নৌবাহিনীর সেই ক্যাপ্টেন বরখাস্ত

মার্কিন রণতরী ইউএসএস থিওডোর রুজভেল্টের অধিনায়ক ক্যাপ্টেন ব্রেট ক্রোজিয়ের (Image: Reuters)

করোনার সংক্রমণ থেকে রণতরী ইউএসএস থিওডোর রুজভেল্টকে বাঁচাতে পেন্টাগনে চিঠি লিখে আর্জি জানানো জাহাজটির অধিনায়ক ক্যাপ্টেন ব্রেট ক্রোজিয়েরকে বরখাস্ত করেছে মার্কিন নৌবাহিনী। পেন্টাগনের উদ্দেশ্যে লেখা চিঠিটি নিজেই প্রকাশ্যে এনে সামরিক বাহিনীর আইন ভঙ্গ করার দায়ে এই শাস্তির মুখোমুখি হতে হল পারমাণবিক শক্তিচালিত বিমানবাহী রণতরীটির প্রধানকে।

সম্প্রতি ইউএসএস থিওডোর রুজভেল্টে থাকা কয়েকজনের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি সনাক্ত হওয়ার পর তা জাহাজটির ৪,০০০ ক্রু’র বাকিদের মধ্যেও ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কায় পেন্টাগনে একটি চিঠি পাঠান ক্যাপ্টেন ব্রেট ক্রোজিয়ের। তিনি অবিলম্বে জাহাজটির বাকি ক্রুদের অন্যত্র সরিয়ে দু’সপ্তাহের কোয়ারেন্টাইনে রাখার পরামর্শ দেন।

তবে সামরিক বাহিনীর নিয়ম ভেঙে ক্যাপ্টেন ক্রোজিয়ের চিঠিটি গণমাধ্যমে প্রকাশ করে দিলে তা বিতর্কের জন্ম দেয়।

মার্কিন নৌবাহিনীর উর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা সাংবাদিকদের বলছিলেন, “পেন্টাগনে পাঠানো চিঠি গণমাধ্যমে ফাঁস করার অপরাধে ক্যাপ্টেন ক্রোজিয়েরকে অপসারণ করা হয়েছে।” তিনি বলেন, “ক্রোজিয়েরের চিঠিটি জনমনে এমন ধারণার জন্ম দিচ্ছিল যে নৌবাহিনী তার বক্তব্যকে গুরুত্বের সাথে নিচ্ছেনা। এমন ধারণাও তৈরি হচ্ছিল যে নৌবাহিনী ও সরকার তাদের দায়িত্ব ঠিকমত পালন করছেনা। যেগুলো একেবারেই সত্য নয়।”

স্থানীয় গণমাধ্যমের সূত্রমতে রণতরী ইউএসএস থিওডোর রুজভেল্টে এখন পর্যন্ত ১০০ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস সনাক্ত করা হয়েছে। জাহাজটিকে বর্তমানে গুয়াম বন্দরে নোঙর করে রাখা হয়েছে। রণতরীর ৪,০০০ ক্রু’র বাকি সদস্যদেরকে বন্দরে অবস্থিত নৌঘাঁটিতে কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হয়েছে।